Ek sheba gov bd Scholarship – eksheba.gov.bd

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ছাত্র-ছাত্রীদের অনুদান প্রদান।

সময়সীমাঃ আগমীকাল ১৫/০৩/২০২১ ইং তারিখ পর্যন্ত অনলাইনে অনুদানের জন্য আবেদন করা যাবে।

➤ আবেদন সম্পর্কিত বিস্তারিত পোস্ট, ইতিমধ্যে করা হয়েছে! প্রয়োজনে চেক করুন এই লিংকেঃ https://campustimesbd.com/archives/2454

⇨ এই অনুদানে আবেদন করতে পারবেঃ ৬ষ্ঠ শ্রেণি থেকে শুরু করে স্নাতক/সমমান/তদুর্দ্ধ সকল শিক্ষার্থীরা। অর্থাৎ, উচ্চ মাধ্যমিক, অনার্স, ডিগ্রি, মাস্টার্সে অধ্যয়নরত সকল শিক্ষার্থী আবেদন করতে পারবেন! এছাড়া যারা ইতিমধ্যে শিক্ষাবৃত্তি ও মেধাবৃত্তি পেয়েছেন তারাও আবেদন করতে পারবেন! (*শুধুমাত্র অন্যান্য বৃত্তি পেয়ে থাকলে সেই তথ্য অনলাইনে আপলোড করতে হবে) অন্যথায় প্রয়োজন নেই।

⇨ তবে এ বিশেষ মজুরি প্রদানের ক্ষেত্রে দুস্থ, অসহায়,রোগস্থ,গরীব,মেধাবী, অনগ্রসর-সম্প্রদায়, অনগ্রসর এলাকার ছাত্র-ছাত্রীদের অগ্রাধিকার প্রদান করা হবে।

 

 ছাত্র-ছাত্রীদের আর্থিক অনুদানের অনলাইন আবেদন করার লিংকসমূহঃ

➤ একসেবা লিংকঃ https://eksheba.gov.bd/service/?id=BDGS-1611115830

➤ মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের লিংকঃ https://shed.portal.gov.bd

➤ কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের লিংকঃ https://tmed.portal.gov.bd

 

⇨  সার্ভারজনিত সমস্যার জন্য আবেদন ঠিকমতো করা যাচ্ছে নাহ, তাই উক্ত লিংকগুলাতে রাতের দিকে এবং ভোর বেলা আবেদন করার জন্য চেষ্টা করে দেখবেন।

 

⇨ প্রয়োজনীয় কাগজপত্রঃ


১. বর্তমানে যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত আছেন সেখান থেকে প্রতিষ্ঠান প্রধান/ বিভাগীয় প্রধানের স্বাক্ষরিত প্রত্যয়ন পত্র। (অবশ্যই লাগবে)
২. নিজের আইডি কার্ড/ জন্ম নিবন্ধন সনদের নম্বর।
৩. পিতা ও মাতার জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর
৪. ইমেইল এড্রেস
৫. সচল মোবাইল নম্বর (অবশ্যই নগদ একাউন্ট সচল থাকতে হবে! নাহ থাকলে,খুলে নিবেন)

{নগদ’ একাউন্ট খুলতে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন:
১. *১৬৭# ডায়াল করুন
২. প্রযোজ্য শর্তাবলি পড়ে ও সম্মতি জানিয়ে ৪ ডিজিটের পিন সেট করুন
৩. পুনরায় পিন টাইপ করে কনফার্ম করুন (গোপন পিনটি কাউকে বলবেন না)
৪. এরপর মুনাফা পেতে চান কিনা বেছে নিন।
ব্যস হয়ে গেলো আপনার ‘নগদ’ একাউন্ট।}

⇨ প্রত্যয়নপত্রঃ আপনি বর্তমানে যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত আছেন সেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে প্রত্যয়নপত্র নিতে হবে! প্রত্যয়নপত্র সংগ্রহের জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে, আপনার একাডেমিক তথ্য (যেমনঃ রেজিষ্ট্রেশন কার্ড, সর্বশেষ রেজাল্টের ফটোকপি), কিছু প্রতিষ্ঠানে ১০০ টাকা এবং দরখাস্ত দিতে হতে পারে!

জেনে রাখুনঃ প্রত্যয়ন পত্র ছাড়া চেষ্টা করলে আবেদন করা যাবে নাহ —পরিশ্রম সবই বৃথা যাবে৷ তাই আগে প্রত্যয়নপত্র সংগ্রহ করে তারপর আবেদনের চেষ্টা করবেন! শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে প্রত্যয়নপত্র পেয়ে থাকলে সকল শিক্ষার্থী আবেদন করতে পারবেন।

 

সেবা প্রদানের সময়সীমা ১২০ কার্যদিবস। মোবাইল ব্যাংকিং(নগদ) পদ্ধতিতে অর্থ প্রদান করা হবে। 

উল্লেখ্য, ইহা প্রধানমন্ত্রীর ট্রাস্ট কর্তৃক স্নাতক ডিগ্রী পর্যায়ে দেওয়া উপবৃত্তির আবেদন নয়!

স্নাতক ডিগ্রী পর্যায়ে ২০১৯-২০ সেশন ১ম বর্ষ নিয়মিত শিক্ষার্থীরা এবং ডিগ্রিতে অধ্যায়নরত অন্যান্য শিক্ষার্থীরা, যারা আগে আবেদন করতে পারেননি তাদের উপবৃত্তির আবেদনের সুযোগ ২০২১ সালের আগস্ট/সেপ্টেম্বর মাসে দেওয়া হবে!

 

সর্তকতাঃ ২০২০-২১ অর্থবছরে “শিক্ষা প্রতিষ্ঠান,শিক্ষক-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য বিশেষ অনুদান” খাতে অনলাইনে আবেদন গ্রহণের জন্য একটি প্রতারক চক্র কতৃক অসৎ উদ্দেশ্যে ভিন্ন ভিন্ন মোবাইল ফোনে NID নম্বর,বিকাশ নম্বর ও গোপন পিন ইত্যাদি চাওয়া হচ্ছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিচয় দিয়ে ফোনগুলো করা হচ্ছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় হতে “শিক্ষা প্রতিষ্ঠান,শিক্ষক-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য বিশেষ অনুদান ” বিষয়ে ইতোপূর্বে কাউকে কোন ফোন করা হয়নি এবং NID নম্বর,বিকাশ নম্বর ও গোপন পিন নম্বর সংক্রান্ত কোন তথ্যও চাওয়া হয়নি। অনুদানের জন্য আবেদন শুধুমাত্র অনলাইনে করতে হবে।
➤  আপনার ব্যতিগত তথ্য, গোপন পিন,জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর, বিশ্বাসযোগ্য ছাড়া অপরিচিত কাউকে দিবেন নাহ!
এ বিষয়ে প্রতারক চক্র থেকে সতর্ক থাকার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হল।

➤ আবেদন সম্পর্কিত বিস্তারিত পোস্ট, ইতিমধ্যে আমাদের সাইটে করা হয়েছে! প্রয়োজনে চেক করুন এই লিংকেঃ https://campustimesbd.com/archives/2454

About Nazmul Hasan

Hi! I'm Nazmul Hasan. I'm Student of Under National University of Govt. B. L. College,Khulna, Department of Political Science....

One comment

  1. Thank you very much.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *