How to apply for a government job by mobile phone

সরকারি চাকুরির আবেদন কিভাবে নিজে করবেন তার বিস্তারিত লিখছি।

আপনি যদি বাইরে থেকে আবেদন করতে না পারেন তাহলে আপনি বাসায় বসে নিজেই আবেদন করেন। এই আবেদন করার জন্য আপনার কাছে যা যা থাকতে হবে তা নিম্নে দেয়া হল –

১। ন্যাশনাল আইডি কার্ড – আইডি নম্বর , পিতা মাতার নাম , ঠিকানার জন্য লাগবে ।

২। জন্মনিবন্ধনপত্র – নিবন্ধন নম্বর , পিতা মাতার নাম , বর্তমান এবং স্থায়ি ঠিকানা ইত্যাদির জন্য লাগবে ।

 বিঃদ্রঃ উপরের যে কোন একটি লাগবে।

৩। SSC , HSC , Honours/Degree সনদ / কপি – এইসব দরকার হবে।
আপনার SSC / HSC roll , passing year , result , division etc জানার জন্য এবং Honours / Degree টা দরকার হবে কোর্স, রোল , পাসিং ইয়ার ইত্যাদির জন্য ।

৪। পাসপোর্ট সাইজ ছবি এবং সিগ্নেচারের স্ক্যান কপি – এইগুলা রিসাইজ করে নিতে হবে ।

আবেদনের জন্য Internet লাগবে এটা বলার দরকার আছে?

উপরের জিনিসপত্রগুলা আপনার কাছে থাকলে আপনি আবেদন করতে শুরু করে দিন । এই জন্য যে চাকুরিতে আবেদন করবেন সেটার নির্দিষ্ট ওয়েবে যাবেন । যদি চাকুরি আবেদনের সাইটটি Teletalk সম্বলিত হয়ে থাকে তাহলে বেশিরভাগ ওয়েবসাইট হবে।

যেমনঃ ***.teletalk.com.bd/ ( *** দেয়ার জায়গাতে যে চাকুরির টাইটেল হবে যেমন – http://cga.teletalk.com.bd/home.php )

আপনি ওয়েবে প্রবেশ করবেন ব্রাউজার দিয়ে ( ব্রাউজারের মধ্যে Google chrome বেশ ভাল ।

এছাড়া রয়েছে Mozila Firefox। Mobile এ আবেদন করলে ব্রাউজার টা Desktop site /mood এ নিয়ে নিবেন। নয়ত আবেদন করতে সমস্যা হবে) ।

আপনি টেলিটকের সাইটে যাবার পর ২টা জিনিস খেয়াল করবেন –

১। সার্কুলারের ডক ফাইল পাবেন – এটা পরে নিলে আপনি চাকুরির যাবতীয় সকল তথ্য পেয়ে যাবেন।

২। Application Form ( Click here to Apply Online ) – এই লিখাতে প্রবেশ করবেন ।

এখন আপনার সামনে যে পেজ আসবে সেটাতে Post Select করার অপশন পাবেন । আপনি নিজের পছন্দ মত চুজ করে Next button click করে পরের স্টেপে যাবেন ।

পোস্ট সিলেক্ট করার পর আবেদনের পেজ চলে আসবে । এখন আপনি যাবতীয় সকল তথ্যগুলা একে একে দিতে থাকেন ।

আবেদনের ১ম স্টেপের পেজটা এরকম –

আপনি ধীরে ধীরে সকল তথ্য দিবেন । তাড়াহুড়া করে কোন ভুল তথ্য দিবেন না । এই পেজে আপনাকে যা যা দিতে হবে –

Your name
Father’s Name
Mother’s Name
Date of Birth
Gender
Nationality
Religion
National ID
Birth Registration
Marital Status
Passport ID
Quota
Mailing Address / Present Address
Permanent Address
Mobile Number
Email
Educational Records

এই সব জিনিস পুরন করবেন । এদের মধ্যে passport ID না থাকলে No , Quota না থাকলে Non Quota দিবেন । Address লিখতে গিয়ে care of অপশন দেখে চিন্তিত না হয়ে সেখানে নিজের Guardian এর নাম দিবেন।

Present address এ নিজের অভিভাবকের নাম ( পিতা-মাতা বা বড় ভাই-বোন ) এবং Permanent address এ আপনি না থাকলে কোন চাচা-চাচির নাম দিবেন যাদের কে কমবেশি সবাই চিনে ( এটা দরকার জাস্ট ভেরিফিকেশনের জন্য ) ।

Departmental Candidate Status নামে যে অপশন দেখবেন সেটাতে হাত দিবেন না ( যদি আপনি উক্ত প্রতিষ্ঠানে চাকুরি করে থাকেন তাহলে শুধু হাত দিবেন )

উপরের সব কাজ করার পর আপনি Validation Code টা ঠিকমত দিয়ে নিচে The Above information is correct এ ক্লিক করে Next বাটনে চাপ দিয়ে পরের পেজে যাবেন ।

এখন আপনি আবেদনের ২য় স্টেপ পুরন করবেন –

২য় স্টেপে শুধু আপনি আপনার ছবি এবং সিগনেচার কেরামতি করে আপলোড করে Apply করে দিবেন । আপনার Application সফল হয়ে আপনার পুরো তথ্যসহ পেজ আসবে । সে পেজটা থেকে User ID টা সংগ্রহ করে রাখবেন । পিকচার তুলে রাখতে পারেন USer ID এর । টাকা পে করার জন্য User ID দরকার হবে ।

আপনাকে প্রথমে ছবি এবং সাইন ঠিক করতে হবে ।

এ জন্য আপনি মোবাইল হতে ২টা পথ অনুসরন করতে পারেন –

১। PICsay apps – এই এপসটা প্লেস্টোর থেকে ডাউনলোড করে নিবেন । তারপর ছবি এবং সাইন রিসাইজ করবেন ।

২। https://picresize.com/ – এই সাইটে গিয়ে আপনি রিসাইজ করে নিতে পারেন । এই সাইট থেকে রিসাইজ করে ডাউনলোড করতে হবে পিকচার ( পিকচার ডাউনলোড করে সেটার নাম বদলাবেন না । যে নামে ডাউনলোড হবে সেটাই রাখবেন )

Picresize Website এর ইন্টারফেসটা এরকম –

Continue to Edit Picture দিবার পর পরের পেজে আপনি যা পাবেন –

যা যা পরিবর্তন করতে হবে তা নিম্নে দেয়া হল –

১। ছবির ক্ষেত্রে এমন হবে –

Custom Size
Width – 300 , Height – 300
JPG quality – Best
JPG max Filesize – 100 kb

Now press – I am done. resize my Picture.

এখন আপনি নিজের ছবি ডাউনলোড করে নিন ।

 

২। সিগনেচারের ক্ষেত্রে –

Custom Size
Width – 300 , Height – 80
JPG quality – Best
JPG max Filesize – 60 kb

Now press – I am done. resize my Picture . এখন আপনি নিজের Sign ডাউনলোড করে নিন ।

এডিট করার আগে নিজের ছবি এবং সাইন কি Original Size 300*300 এবং ৩০০*৮০ এর বেশি রেজুলেশনে আছে কিনা চেক করে নিবেন । নতুবা রিসাইজ হবে না।

 

যাদের কাছে পাসপোর্ট সাইজের ছবি এবং সাইনের স্ক্যান কপি নেই । তারা পাসপোর্ট সাইজের ছবির
হার্ড কপি থাকলে CS Scanner apps ডাউনলোড করে সেটা দিয়ে সুন্দর করে কাজ করে নিতে পারবেন । সাইনের জন্য একটা খাতা নিয়ে সেটাতে সাইন করে ক্যামেরা দিয়ে ছবি তুলতে পারেন বা CS scanner দিয়েও কাজ করে নিতে পারেন ।

হার্ড কপি থেকে ছবি তুলে CS Scanner এপস দিয়ে স্ক্যান করে ছবি ও স্বাক্ষর ফ্রেশ এবং পরিষ্কার করে নিজের ফোনে বা পিসিতে রেখে দিন ।

আবেদন সফল হলে User ID সহ যে পেইজ পাবেন সেটা Ctrl+P দিয়ে পিডিএফ করে রাখতে পারেন বা ছবি তুলে রাখতে পারেন বা স্ক্রীর্নশর্ট নিয়ে রাখতে পারেন । User ID দিয়ে পেমেন্ট করার পর আপনি নিজের মোবাইলে USer ID and Password পেয়ে যাবেন এডমিট কার্ডের জন্য ।

  • Your application শেষ এখন । এরপরেও কেউ না বুঝলে আমাদের পেজে মেসেজ করবেন। ইনশাআল্লাহ ফ্রিতে সাহায্য করব।

About Nazmul Hasan

Hi! I'm Nazmul Hasan.I'm Student of Govt. B.L. College,Khulna, Department of Political Science....

Check Also

প্রতিবন্ধী কোটা বহাল আছে : মন্ত্রীপরিষদ সচিব

আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে সরকার গত বছর প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির সরকারি চাকরিতে সব ধরনের কোটা বাতিল …

ফেসবুক থেকে আয় করার সেরা কিছু উপায়

  শুধুমাত্র ছবি আপলোড এবং বন্ধুদের সাথে যোগাযোগ রক্ষাই নয়, চাইলেই ফেসবুককে ব্যবহার করতে পারেন …

Dhaka university তে মাস্টার্স করার স্বপ্ন যাদের রয়েছে

Dhaka university তে মাস্টার্স করার স্বপ্ন অনেকের অাছে তাই না? তাহলে পোস্ট টা সম্পূর্ন মনোযোগ …

চাকরি না পাওয়ার চার কারণ

চাকরি খুঁজছেন? কিছু সীমাবদ্ধতার কারণে স্বপ্নের সোনার হরিণটির কাছাকাছি গিয়েও আপনাকে বারবার ব্যর্থতার মুখোমুখি হতে …

Introduce Yourself – যেভাবে উত্তর করে ভাইবা বোর্ডকে খুশি করবেন…

ভাইবা বোর্ডে একটি কমন প্রশ্ন থাকেই, সেটি হল “Introduce Yourself “, ভাইবা বোর্ডের নির্দিষ্ট ১টি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!