পরাজিতরা করে কিন্তু বিজয়ীরা করে না

৭টি কমন জিনিস যা পরাজিতরা করে কিন্তু বিজয়ীরা করে না। পরাজিতরা করে কিন্তু বিজয়ীরা করে না। পরাজিতরা টিভি/সিরিয়াল দেখে সময় নষ্ট করে। বিজয়ীরা বই পড়ে জ্ঞান অর্জন করে। আপনি গত ৩ মাসে কত ঘন্টা টিভি দেখে অলস সময় নষ্ট করেছেন? পক্ষান্তরে কত ঘন্টা শিক্ষনীয় বই/ব্লগ পড়েছেন?

 

২। পরাজিতরা অপরকে দোষারোপ করতে থাকে। বিজয়ীরা নিজের পরাজয়ের দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেয়। পরাজিতরা কখনো সরকার, কখনো প্রতিবেশি, নগর ব্যবস্থা, চাকরি, অর্থনীতি, বন্ধু বান্ধব ইত্যাদিকে দোষারোপ করতে থাকে। বিজয়ীরা পরাজয়কে বরণ করতে জানে। পরাজয়কে নিজের কাঁধে তুলে নিয়ে শক্তিতে রূপান্তর করে আগের ভুলগুলো শুধরে নতুন করে কাজে ঝাপিয়ে পড়ে।

 

৩। পরাজিতরা সঞ্চয়ের উপর মনযোগী থাকে। বিজয়ীরা মনযোগ দেয় ইনভেস্টমেন্টে। সঞ্চয় করে ধনী হওয়া অনেক কঠিন। ছোট ছোট সঞ্চয়কে বিনিয়োগ করে ধনী হতে হয়।

 

৪। পরাজিতরা ভাবে সে সর্বজ্ঞানী। আর বিজয়ীরা রেগুলার শিখতে থাকে। নতুন নতুন জ্ঞান আহরন করে নিজেকে আরো বেশি সমৃদ্ধ করে। সক্রেটিস কে একজন প্রশ্ন করেছিল, আপনি এতো জ্ঞানী কিভাবে হলেন? সক্রেটিস বললেন, আমি জানি আমি আসলে কিছু জানি না। অন্যরা জানেই না যে তারা আসলে কিছুই জানে না।

 

৫। পরাজিতরা কত ঘন্টা পরিশ্রম করল তার ভিত্তিতে পেমেন্ট নেয়। বিজয়ীরা পেমেন্ট নেয় কাজের রেজাল্টের উপর। আপনি যদি একটা রেস্টুরেন্টে ক্লিনারের চাকরি নেন। দুনিয়ার সবচেয়ে ঝকঝকে তকতকে বানিয়ে রাখেন তাও কত দিন কাজ করলেন তার উপর পেমেন্ট দেয়া হবে। কিন্তু বিজয়ীরা এমন কাজ করে যার পেমেন্ট সময়গুণে হয় না। পেমেন্ট হয় কাজের রেজাল্টের ভিত্তিতে। একটা জাহাজ নষ্ট হয়ে গেল। কিছুতেই ইঞ্জিন স্টার্ট নিচ্ছে না। বড় বড় ইঞ্জিনিয়ার ফেল। একজন বৃদ্ধ ইঞ্জিনিয়ার গিয়ে ইঞ্জিনের এক জায়গায় ৩টা বারি মারল। অমনি স্টার্ট হয়ে গেল। সে বিল দাবী করল ১ লাখ টাকা। জাহাজের মালিক বলল, ডিটেইল বিল দাও, এতো টাকা কিভাবে হলো? ইঞ্জিনিয়ার বলল, আমি যে পরিশ্রম করেছি ,তার জন্য ১ হাজার টাকা। আর কোথায় বারি দিতে হবে সেটা জানার জন্য বাকী ৯৯ হাজার টাকা।

 

৬। পরাজিতরা টাকাকে সকল মন্দ কাজের উৎস মনে করে। বিজয়ীরা ভাবে টাকাই সকল ভালো কাজের উৎস। মাদক, চুরি, ডাকাতি, ক্রাইম সব কিছুই হয় টাকার জন্য। টাকা নিজে কখনো কিছু করতে পারে না। তাকে মন্দ কাজে লাগালে মন্দ রেজাল্ট দেয় ভালো কাজে ব্যয় করলে ভালো ফল দেয়।

 

৭। পরাজিতরা সব সময় লটারির মানসিকতায় থাকে। বিজয়ীরা থাকে একশনে।

 

পরাজিতদের মনে সব সময় এক ধরনের ফ্যান্টাসী কাজ করে। আমি হুট করে একটা ভালো চাকরি পেয়ে যাব, হুট করে একটা ব্যবসা করে কোটিপতি হয়ে যাব, হুট করে এটা হয়ে যাব সেটা হয়ে যাব। বিজয়ীরা সব সময়ে একশনে থাকে। কি পেল না পেল তা পরে দেখা যাবে। আগে কাজ করে যেতে হবে। অলস সময় নষ্ট করা যাবে না। ছোট ছোট কাজগুলোই এক সময় তাকে বড় মানুষ করে তোলে।

 

একটি বিদেশী ভিডিও ব্লগ থেকে অনুবাদিত এবং কিছুটা নিজের মনের মাধুরি মিশ্রিত।
S M Nahidur Rahman

About Nazmul Hasan

Hi! I'm Nazmul Hasan. From Koyra, Khulna. I'm Student of Under National University of Govt. B. L. College, Khulna, Department of Political Science....

Check Also

কমিউনিটি হেলথকেয়ার প্রভাইডার নিয়োগ পরীক্ষা - ৭৯৮ পদের পরীক্ষা ১১ নভেম্বর ২০২২

ডিপ্লোমা ইন নার্সিং ৩য় বর্ষ পরীক্ষার কেন্দ্র তালিকা ২০২৪

ডিপ্লোমা ইন নার্সিং ৩য় বর্ষ পরীক্ষার কেন্দ্র তালিকা ২০২৩। বাংলাদেশ নার্সিং ও মিডওয়াইফারি কাউন্সিলের অধীন …