বি সি এস ভাইভা নিয়ে কিছু কথা.. ডাঃ আফরিন

ভাইভা নিয়ে কিছু কথা

সামনেই বি সি এস ভাইভা, যারা ভাইভা পরীক্ষার্থী তাদেরকে অভিনন্দন। আর মাত্র কয়েকধাপ, তারপরই আপনার স্বপ্নপূরন।নিজের মেধা,নিজের পরিশ্রমের প্রমান আপনি দিয়ে এসেছেন প্রিলি এবং রিটেনে।এবার নিজের ব্যক্তিত্ব, আচার-আচরন এবং আপনি যে ক্যাডার হিসেবে যোগ্য সেটা প্রমানের পালা।এখানে আপনার মুখস্থবিদ্যার চেয়ে আপনার প্রকাশভঙ্গী, দৃষ্টিভঙ্গি, আপনার রুচিবোধ,জীবনবোধ ,আপনার উপস্থাপন বেশি দেখা হয়।

কি কি পড়তে হবে,জানতে হবে এসবই সবার জানা।তাও আরেকবার মনে করিয়ে দেয়া—–

–নিজ এবং নিজ জেলা

–মুক্তিযুদ্ধ ও জাতিরজনক

–নিজের সাব্জেক্ট

–চয়েস(প্রথম ৩/৪টি)

–বর্তমান সরকার

–সাম্প্রতিক বিষয়

নিজ সম্পর্কে, নিজের জেলা,জেলার ইতিহাস,মুক্তিযুদ্ধ, জাতিরজনক ইত্যাদি বিষয়গুলো বাংলা এবং ইংলিশ দুইভাবেই শিখে যাবেন।

পোষাক –পোষাকের ক্ষেত্রে নিজে স্বাচ্ছন্দ্যববোধ করেন এবং রুচিসম্মত পোষাক পরিধান করুন।তবে হালকা রং এবং শব্দহীন জুতা পরা উচিত।

পেপারস –পরীক্ষার আগেই সব পেপারস গুছিয়ে নিন।মেইন কপি একসাথে এবং অন্তত ৩ সেট ফটোকপি সত্যায়িত করে সাথে রাখুন।

আপনার সার্টিফিকেটে কোন বিশেষ দিন,সাল থাকলে এবং ভাইভার দিন কোন বিশেষ ঘটনা থাকলে সুন্দর ভাবে জেনে যাবেন।

ভাইভার আগে যেয়ে আগের ভাইভা ৩/৪দিন দেখে আসতে পারেন।কি ধরনের প্রশ্ন হয় তা জেনে যাবেন।আবার অনেক ফেসবুক পেজ খোলা হয় এই সময় যেখানে প্রতিদিনের ভাইভা সম্পর্কে তথ্য দেয়া হয়।সেগুলো সম্পর্কে একটু খোজ খবর রাখুন।অনেক উপকৃত হবেন কারন অনেক প্রশ্ন রিপিট হয়।

ডেমো ভাইভা— পরীক্ষার আগে ২/৩ টা ডেমো ভাইভা দিন।আপনার ভুল ত্রুটি গুলো ধরা পরবে এবং সেগুলো শুধরে নিন।কয়েকজন বন্ধু মিলেও এটা করতে পারেন।

ভাইভার দিন—সকালে উঠে রেডি হয়ে হালকা নাস্তা করে নিন,সাথে পানি এবং ওইদিনের পেপার(ইংলিশ এবংবাংলা)রাখুন।

পেপারের মেইন হেডলাইনে চোখ বুলিয়ে নিন।পেপারের উপরে তারিখ এবং সাল(বাংলা,ইংলিশ, আরবী) দেখে নিন।ভাইভার দিন অন্তত ৩০মি আগে পি এস সির সামনে যাবেন।ভিতরে ঢুকিয়ে প্রথমে কনফারেন্স রুমে বসাবে।এরপর অন্য একটা রুমে নিয়ে লটারীর মাধ্যমে বোর্ড নির্বাচন করা হবে।আমার সময়ে আমরা এক বোর্ডে ১৫ জন করে ছিলাম।এরপর বোর্ডে নিয়ে যেয়ে পেপারস জমা নেয়া হবে এবং সিরিয়ালি ডাকা হবে।এখানে ধৈর্য ধরে চুপচাপ বসে থাকার চেষ্টা করুন,অহেতুক গল্প না করাই ভালো।

বোর্ড —আপনার সিরিয়াল আসলে সাবধানে দরজা খুলে ভিতরে প্রবেশ করুন।টেবিলের সামনে যেয়ে সবার উদ্দেশ্যে সালাম দিন।সাধারনত ৩/৪জন মেম্বার থাকবেন।বসতে বলার পর বসুন, হুট করে বসে পড়বেন না।অহেতুক বার বার ধন্যবাদ দেয়া এবং অকারনে হাসা এটা ভালো দেখায় না।যতটা সম্ভব স্বাভাবিক থাকুন,নার্ভাস লাগবে এটাই স্বাভাবিক। এবার প্রশ্ন অনুযায়ী উত্তর দিন।না পারলে সরি বলে স্বীকার করে নিন।বানিয়ে কিংবা তোতলিয়ে বলতে যাবেন না।কোনপ্রকার তর্কে যাবেন না,হাত পা নাড়াবেন না।বোর্ডে কোন ম্যাডাম থাকলে তাকেও “স্যার” বলে সম্বোধন করুন।ভাইভা শেষ হলে পুনরায় সালাম দিয়ে বেরিয়ে আসুন।

বাসায় কয়েকবার প্রাকটিস করতে পারেন এই বিষয়গুলো।কিভাবে যাবেন,বসবেন,কথা বলবেন।তাহলে নার্ভাসনেস অনেকটা কম হবে।

সবার জন্য শুভকামনা।

ধন্যবাদ…..

ডাঃআফরিন

About Nazmul Hasan

Hi! I'm Nazmul Hasan.I'm Student of Govt. B.L. College,Khulna, Department of Political Science....

Check Also

৪০তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি শিগগিরই

৪০তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি শিগগিরই  -দেলওয়ার হোসাইন ৩৯তম বিশেষ বিসিএসের সঙ্গে ৪০তম সাধারণ বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি আগামী …

বিশেষ বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি এ মাসেই

বহুল আলোচিত ও শুধু মাএ ডাক্তার দের জন্য একটা বিশেষ বিসিএস নেওয়া হবে তা অনেক …

শেষ মুহূর্তের বিসিএস প্রস্তুতি নিয়ে সুশান্ত পাল এর টিপসঃ

শেষ মুহূর্তের বিসিএস প্রস্তুতি নিয়ে সুশান্ত পাল এর টিপসঃ – ০১. আবেগ কমান, সাধারণ জ্ঞান …

→বিসিএস প্রস্তুতির জন্য চমৎকার কিছু টেকনিক

→বিসিএস প্রস্তুতির জন্য চমৎকার কিছু টেকনিক তুলে ধরলাম করলাম। আশা করি বন্ধুদের কাজে লাগবে। মনে …

বলতে লজ্জা নেই দিনমজুর থেকে বিসিএস ক্যাডার হয়েছি

অভাবের সংসারে লেখাপড়া করাই যেখানে বিলাসীতা ছিল। তারপরও দারিদ্রকে জয় করেছেন তিনি। নিজ মেধার জোরে …

Leave a Reply