Incourse and present number cancelled – www.nu.ac.bd

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স,মাস্টার্স কোন পরীক্ষাতে থাকছেনা ইনকোর্স ও উপস্তিতির উপর নম্বর

অনার্স ও মাস্টার্স পরীক্ষায় উপস্থিতি ও ইনকোর্স পরীক্ষায় নির্ধারিত ২০ নম্বর না রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিল।

আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে ৮০ নম্বরের পরিবর্তে ১০০ নম্বরের পরীক্ষা হবে।

 শনিবার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯১ তম সিনেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন উপাচার্য ড. হারুন অর রশিদ।

 তথ্য অনুসারেঃ-
“জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজগুলোতে অনার্স ও মাস্টার্স পরীক্ষায় উপস্থিতি ও ইনকোর্স পরীক্ষায় নির্ধারিত ২০ নম্বর না রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিল। এর ফলে আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে কোর্সগুলোতে ৮০ নম্বরের পরিবর্তে ১০০ নম্বরের পরীক্ষা হবে।”

বিশেষ ভাবে লক্ষণীয় যে,
এখানে আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে এই নীতিমালা প্রণয়নের কথা উল্লেখ আছে। যার অর্থ ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষ বুঝায়।
তবে চলমান শিক্ষাবর্ষ গুলোর ক্ষেত্রে এই নিয়ম প্রণয়ন হবে কি না তা নতুন নীতিমালা না দেওয়া পর্যন্ত কিছু বলতে পারলাম না।
সুতরাং নিজেদের মধ্যে মত বিরোধে না জড়িয়ে সময়ের অপেক্ষা করুন। 

 

তবে ইনকোর্স পদ্ধতি বাতিল করলে যে সমস্যা দেখা দিবে তা হলোঃ-  

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার মান বৃদ্ধিতে ইনকোর্স ও উপস্তিতির উপর ২০ নম্বর বন্ধ কোন ভাল ফলাফল আনবে না।

পূর্ববর্তী সময়ে (২০১২-১৩) সেশন পর্যন্ত জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থা আমরা সবাই দেখেছি। ৪০ নম্বর পেয়ে পাস করাই কত কঠিন ছিল সে সময়।

ইনকোর্স ও ক্রাশ প্রোগ্রামের মাধ্যমে পূর্বের অবস্থা এখন নেই বললেই চলে। পরীক্ষার ফলাফলে প্রথম বিভাগের পরিমাণ আগের চেয়ে বেশি।

কিন্তু হঠাৎ করে সিনেটের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে থাকছে না ইনকোর্স পরীক্ষা।
ইনকোর্স না থাকার ফলে যেসব সমস্য দেখা দিবেঃ
১। ১০০ নম্বরের পরীক্ষা হবে ৪ ঘন্টা এবং পাস নম্বর হবে ৪০%
বর্তমানে ইনকোর্স আর রিটেন সহ ৪০% পেলেই পাস হয়ে যাচ্ছে। ১০০ নম্বরের পরীক্ষায় পাস করা কঠিন হবে।
২। উপস্তিতির উপর নাম্বার থাকার কারণে কম হলেও শিক্ষার্থীরা কলেজমুখী হয়েছে। ইনকোর্স না থাকার কারণে কলেজে যাওয়ার প্রয়োজন মনে করবেনা বেশিরভাগ শিক্ষার্থী।
৩। ইনকোর্স না থাকার ফলে প্রথম বিভাগ পাওয়া কঠিন হয়ে যাবে।
৪। কলেজের স্যারেরা এমনিতেই ক্লাসে আসেন না ছাত্রছাত্রী না আসলে তারাও হাজিরা দিয়ে বাসায় চলে যাবে।
৫। ৮০ নম্বরের পরীক্ষা ৪ ঘন্টায় হয়, ১০০ নম্বরের পরীক্ষাও ৪ ঘন্টায় হবে।

শিক্ষার মান বৃদ্ধির লক্ষে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উচিত অন্য কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করা যার মাধ্যমে আমরা শিক্ষার্থীরা প্রকৃত শিক্ষা লাভ করবো।

বিঃদ্রঃ ইনকোর্স পরীক্ষা বর্তমান চলমান সেশনগুলোতে থাকবে। আগামী ২০২০/২০২১ সেশন থেকে যারা নতুন ভর্তি হবে তাদের জন্য কার্যকর হবে।

খুব সহজে নিজ শহরে চাকরি খুঁজতে সম্ভব এপস ডাউনলোড করুন!

এপস ডাউনলোড লিংক

error: Content is protected !! Admin